মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯, ০৬:৫৪ পূর্বাহ্ন

মাগো তুমি  যেও না চলে

মাগো তুমি  যেও না চলে

মাগো তুমি  যেও না চলে
অসিত সরকার

মা গো তুমি যেও না চলে,
খুজে বেড়ায় তুমার পাগল ছেলে,
গ্রাম বাংলার পথে।
মায়ের ভালোবাসা খুজে বেড়ায়, সুনীল আকাশ নিচে।

মায়ের কাছে আল্লাহ থাকে,
মায়েই ভগবান।
মায়ের কাছে ঈশ্বর থাকে
মায়েই পাতিয়ান।
মায়ের কাছে স্বর্গ -নরক,
বেহেশতখানা থাকে
মায়ের মুখে চেয়ে দেখ খুঁজে পাবে থাকে।

মা গো তুমি যেও না চলে,
খুজে বেড়ায় তুমার পাগল ছেলে,
গ্রাম বাংলার পথে।
বন্ধু ভালোবাসে স্বার্থপরের মত,
আত্মীয়বোধে ভালোবাসে, আত্মীয় আছে যত,
বিনাস্বার্থে ভালোবাসে ত্রিভুবনে হায়,
তিনি হলো মা জননী আর কেহ নাই।

মা গো তুমি যেও না চলে,
খুজে বেড়ায় তুমার পাগল ছেলে,
গ্রাম বাংলার পথে।
বৈশাখের সেই  কালবৈশাখী ঝড়ে,
আকাশ যখন ভেঙে পরে।
সকলে নিজে নিজের জীবনকে বাচায়,
শুধু মা তার সন্তানকে খুজে বেরায়।

মা গো তুমি যেও না চলে,
খুজে বেড়ায় তুমার পাগল ছেলে,
গ্রাম বাংলার পথে।
সন্তান মায়ের শঙ্খবালা,
সন্তান মায়ের  মুক্তামালা।
সন্তান মায়ের চাঁদের মনি,
সন্তান মায়ের হীরার খনি।
সন্তানই মায়ের কাছে সকল কিছু হায়,
মা ছাড়া সন্তানের আপন কেহ নাই।

মা গো তুমি যেও না চলে,
খুজে বেড়ায় তুমার পাগল ছেলে,
গ্রাম বাংলার পথে।
সূয্যিমামা রোজ সকালে জগৎ করে আলো,
মা তেমনি সন্তানকে সুশিক্ষা দিল।
সন্তান যদি অন্যায় করে,
মা থাকে শাসন করে,
সন্তানের ভুল -ত্রুটি সবি দেখিয়ে নিল,
সকল কিছু সংশোধনের সুযোগ করে দিল।
সন্তানকে মা ন্যায় বিচারের জগৎ  দেখিয়ে দিল।

মা গো তুমি যেও না চলে,
খুজে বেড়ায় তুমার পাগল ছেলে,
গ্রাম বাংলার পথে।
গ্রীষ্মের সেই তীব্র খরায়,
মায়ের আঁচল শীতল ছড়ায়।
বর্ষার সেই বৃষ্টি মাঝে,
মায়ের আঁচল চাউনি সাজে।
শীতের সেই  তীব্র শীতে,
সন্তানকে উষ্ণতা দিতে,
মায়ের আঁচল সন্তানের চাদর হয়ে যায়,
মায়ের সেই উষ্ণ ছোঁয়া তাহার মাঝে পায়।

মা গো তুমি যেও না চলে,
খুজে বেড়ায় তুমার পাগল ছেলে,
গ্রাম বাংলার পথে।
মাগো তুমি ভেঙ্গে গেল  যত আছে আরি,
চল যাই মাগো,এখন যাই মোদের বাড়ি।
বাজার থেকে কিনে দিব জামদানী শাড়ি,
আরও দিব লাল আলতা,লাল টিপ,মুক্তামালা আর শঙ্খবালা।
তা দিয়ে নিবাবে তোমার, যত আছে জ্বালা।

ভাল লাগলে শেয়ার করেন




© All rights reserved © 2017 jonopriya.com
Design & Developed BY jonopriya.com
error: Content is protected !!