শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ০৩:১৩ পূর্বাহ্ন

বৃদ্ধাশ্রম

বৃদ্ধাশ্রম

অসিত সরকার

বৃদ্ধাশ্রম একটি শব্দ আমরা সকলেই শুনি,
এই স্থানেতে ধনী আর  শিক্ষিতদের মা-বাবা থাকে জানি।

অশিক্ষিত গরীব যারা,
শত কষ্টের মধ্যে তারা,
মিলেমিশে থাকে।
মা-বাবাকে ভালোবাসে,
একসঙ্গে রাখে।

কোথায় তুমি দশভুজা,
আজকে কেন শান্ত খুব।
ধবংস কর এই সমাজের,
অসুর রূপী ভদ্রলোক।

শিক্ষিত রূপী পশু তারা,
জানেনা প্রকৃত শিক্ষা।
মা -বাবাকে বৃদ্ধাশ্রমে পাঠানোর,
কোথায় পেল দীক্ষা।
কোথায় সেই শিক্ষাগুরু,
কোথায় সেই শিক্ষালয়,
বধ করবো শিক্ষাগুরু,
ধবংস করবো বিদ্যালয়।
কোথায় তুমি কালভৈরব,
আজকে কেন শান্ত খুব,
ধবংস কর এরূপ শিক্ষক,
ধবংস কর শিক্ষাকুল।

আমার মাঝে বিরাজ করো,
ধারন কর অগ্নি রূপ।
পুড়িয়ে পেল এই সমাজের,
মানুষ রূপে পশুর রূপ।
প্রদান কর সুশিক্ষা,
শিক্ষিত হক সকল লোক,
মা বাবাকে সাথে নিয়ে,
জগতের প্রকৃত সুখ।

কোথায় সেই পাঠ্যপুস্তক,
কোথায় আছে লিখা তাই,
বৃদ্ধ হলে মা-বাবাকে,
বৃদ্ধাশ্রমে দিতে হয়।
ধবংস করব এরূপ পুস্তক,
ধবংস করব লেখকের,
মা-বাবাকে হেয় করে,
এইসব যে লিখেছে।

কোথায় তুমি কালভৈরবী,
কোথায় তোমার কাল রূপ।
শিবের বুকে নৃত্য করেছিলে,
আজকে কেন শান্ত খুব,
প্রলয় নৃত্য ধারণ কর এই ধরিত্রীর মাঝে,
যারা মাকে হেয় করে বাবাকে বলে বাজে।
ধবংস কর সমাজের সেই সকল সন্তান,
মা-বাবাকে যে পশুরা করে অপমান।

কোন অধ্যায়ে লিখা আছে খুজি আমি পেতে,
বৃদ্ধ হলে বৃদ্ধাশ্রমে মা-বাবাকে দিতে।
ধবংস করব এমন অধ্যায় বিশ্বসাহিত্যের মাঝে,
ধবংস করব পৃষ্ঠাগুলো অগ্নি রূপে সেজে।

কালী, শ্যামা, কালভৈরবী, চন্ডী তোমার নাম,
প্রলয় নেশায় বিনাশ করো অট্টালিকা ধাম,
যেথায় মা-বাবার থাকে না কোন অবস্থান।

নটরাজ আজকে কেন তুমি খুব শান্ত,
সত্যি তুমি কি  আজ ক্লান্ত।
আমি নয়কো শান্ত,
আমি হব না কোন ক্লান্ত।
এরূপ সন্তানের মাথায় তোমার নৃত্য ধারন করবো,
খারাপ মস্তিষ্কের মধ্যে আমি সজীবতা ছড়াব,
ভালো -মন্দের পার্থক্য আমি শিক্ষাব।
তুমি করোনা কোন সৃষ্টি বাধা,
দেখ শুধু এক প্রান্ত,
তার পূর্বে আমি হব না কোন ভাবেই শান্ত,
ত্রিভূবনের কেউ পারবে না করতে আমায় ক্লান্ত ।

বিনাশিনী, মুন্ডুমালিনী,শ্যামা কালী নানান তোমার রূপ,
কোথায় তোমার ভয়ংকরী রূপ,
শিবের বুকে নৃত্য করে আজকে ক্লান্ত খুব।
আমি নইকো ক্লান্ত,
হবোনা আমি শান্ত,
আমি তোমার কালী রূপ ধারণ করব,
এরূপ সন্তানের বুকে প্রলয় আনব,
পাষান হৃদয় আমি ভাঙ্গিব,
সেই হৃদয়ে কোমলতার সুভাষ চড়াব।
তার পূর্বে আমি হব না কোন ভাবেই শান্ত,
ত্রিভূবনে কেউ পারবে না করতে আমায় ক্লান্ত।

একটি প্রশ্ন আমি এই সমাজে রাখতে চাই,
মা-বাবাকে কষ্ট দিয়ে সত্যি  কি সুখ পাওয়া যায়?
যাদের জন্য এসেছি মোরা এই ধরিত্রীর মাঝে,
তাদের পূজে ধন্য জীবন, ধন্য জগত সাজে।

আজকে তুমি সন্তান,
কালকে শিশুর পিতা,
এরূপ যদি তোমার সঙ্গে করে বিধাতা।
তোমার সন্তান তোমায় যেদিন নিবে বৃদ্ধাশ্রমে,
সেদিন তুমি বুঝতে পারবে বৃদ্ধাশ্রমের কি মানে।

বৃদ্ধাশ্রমে নাই শান্তি,
নাই কোন স্বর্গ সুখ,
বৃদ্ধাশ্রমে নরক যন্ত্রণা,
সইতে হবে সকল শোক।
সন্তানের কাছে পিতা-মাতার থাকে  প্রকৃত সুখ।

ভাল লাগলে শেয়ার করেন




© All rights reserved © 2017 jonopriya.com
Design & Developed BY jonopriya.com
error: Content is protected !!