বুধবার, ০৮ জুলাই ২০২০, ০৬:৫৪ অপরাহ্ন

“প্রধানমন্ত্রী আমাকে যে উপহার পাঠিয়েছেন তার জন্য আমি খুবই খুশী”

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৪ মে, ২০২০
  • ৬০ বার পঠিত
“প্রধানমন্ত্রী আমাকে যে উপহার পাঠিয়েছেন তার জন্য আমি খুবই খুশী”
“প্রধানমন্ত্রী আমাকে যে উপহার পাঠিয়েছেন তার জন্য আমি খুবই খুশী”

গোপালগঞ্জ শহরের মান্দারতলা এলাকার দর্জির কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন জোৎসনা বেগম। করোনার কারনে দীর্ঘদিন ঘরে বসা। কোন কাজকর্ম নেই, দরিদ্র পরিবার। সামান্য দর্জির কাজ করে সংসার চালাতে হয়। সামনে ঈদ কিন্তু হাতে একটা টাকাও নেই। চিন্তায় ছিলাম কিভাবে খেয়ে পরে বাচঁবো।

কিন্তু সকাল ১০টার দিকে হঠাৎ করে মোবাইল ফোনের ম্যাসেজ টোন বেজে ওঠে। ম্যাসেজটি খুলে দেখেন দুই হাজার পাঁচশত টাকার একটা ম্যাসেজ এসেছে। লেখা রয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার “নগদের” মাধ্যমে পেয়েছেন। এই মুহুর্তে প্রধানমন্ত্রী আমাকে যে উপহার পাঠিয়েছেন তার জন্য আমি খুবই খুশী। যা বলে বুঝাতে পারবো না। আল্লাহর কাছে নামাজ পড়ে দু’হাত তুলে দোয়া করবো। হে আল্লাহ তুমি তাঁকে দীর্ঘায়ু দান করুন।

শুধু জোৎসনা বেগম নয়। অনুভুতি ব্যক্ত করেছেন, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার গোবরা মালোপাড়া গ্রামের মৎস্য শিকারী প্রশান্ত বিশ্বাস, একই উপজেলার বলাকৈড় গ্রামের গার্মেন্টস শ্রমিক লাভলী বেগমসহ বেশ কয়েকজন দরিদ্র মানুষ।

তারা বলেন, আজ প্রধানমন্ত্রী আমাদের যে উপকার করলেন তা কোন দিনও ভোলার নয়। করোনার সময় আয় রোজগার নাই। ছেলে মেয়ে নিয়ে সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছি। ঠিক সেই সময় প্রধানমন্ত্রী আমাদের উপহার হিসেবে অনুদান পাঠিয়েছেন। তাও আবার মোবাইলের মাধ্যমে। যখন খুশি তখন উঠাতে পারবো। প্রয়োজন মতো জিনিস পত্র কিনতে পারবো। আমরা প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

আজ বৃহস্পতিবার (১৪ মে) সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া ঈদ উপহার নিয়ে বের হওয়ার সময় এসব অনুভুতি ব্যক্ত করেন তারা।

দেশব্যাপী করোনা ভাইরাসে কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষকে মোবাইল ব্যাংকিং পরিসেবার মাধমে নগদ অর্থ প্রদান কর্মসূচীর উদ্ধোধন অনুষ্ঠানে গোপালগঞ্জ অংশে ভিডিও কনফারেন্স এর আয়োজন করা হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন, জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা। এ সময় গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি চৌধুরী এমদাদুল হক, সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ লুৎফর রহমান বাচ্চুসহ জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ ও সুবিধা ভোগীরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা বলেন, গোপালগঞ্জ জেলায় ৫৫ হাজার মানুষের নামের তালিকা প্রস্তুত করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার থেকে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে টাকা আসা শুরু হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সবারই টাকা চলে আসবে।

শেয়য়ার করুন..

এ জাতীয় আরও সংবাদ

© All rights reserved © 2020 jonopriya.com
কারিগরি সহযোগিতায়-SHAHIN প্রয়োজনে:০১৭১৩৫৭৩৫০২ purbakantho
themesba-lates1749691102