সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ১২:০৪ অপরাহ্ন

নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেলেও এখনো শেষ হয়নি সংস্কার কাজ

নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেলেও এখনো শেষ হয়নি সংস্কার কাজ

মোঃ মোহন মিয়া, দুর্গাপুরঃ

নির্ধারিত সময়ের ৫ মাস পেরিয়ে গেলেও এখনো শেষ হয়নি দুর্গাপুর-কলমাকান্দা ২৪ কি:মি: সড়কের সংস্কার কাজ। এতে করে ভোগান্তির যেন শেষ নেই সীমান্তবর্তী এলাকার মানুষের।

২৪ কিলোমিটার এই সড়কের পুরোটা জুড়েই তৈরি হয়েছে ছোট বড় অসংখ্যা খানাখন্দের। ফলে প্রতিদিন ঘটছে র্দূঘটনা। চলতি বছরের মে মাসেই সড়কটির কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান প্রভাবশালী হওয়ায় দীর্ঘ দিন ধরেই কাজ বন্ধ করে রেখেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

ফলে প্রতিনিয়তই দুর্ভোগ পোহাচ্ছে রোগীসহ দুই উপজেলা হাজারো মানুষ। দুর্গাপুর- কলমাকান্দা এই দুই উপজেলায় প্রায় ছয় লাখ মানুষের বসবাস। প্রতিদিন উপজেলার লক্ষাধিক মানুষ, যানবাহন থেকে শুরু করে রোগীবাহী গাড়ী সহ সকল কিছুই যাতায়াত করছে এই সড়ক দিয়ে।

কিন্তু বিগত কয়েক বছর ধরে এই সড়কটিতে যাত্রী চাপ বাড়ায় দিন দিন খারাপ হয়ে থাকে সড়কটি। সমস্যা সমাধানে বর্তমান সরকার এলজিইডির আওতায় দুর্গাপুর-কলমাকান্দা পর্যন্ত প্রায় ২৪ কিলোমিটার এই সড়কটি নতুন করে সংস্কারের জন্য মোট তিন প্যাকেজে গত বছরের ৫ ই আগস্ট সাড়ে ২৪ কোটি টাকায় ব্যায়ে ডলি কনস্ট্রাকশন লিমিটেড নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সংস্কার কাজ শুরু করে।

এর মাঝে দুর্গাপুর-নাজিরপুর পর্যন্ত ১০ কি.মি একটি প্যাকেজ ও নাজিরপুর- কলমাকান্দা বাজার পর্যন্ত ১৫ কি.মি বাকী দুইটি প্যাকেজ ধরা হয়। যা চলতি বছরের ৬ই মে সম্পূণ কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও নির্ধারিত সময়ের অতিরিক্ত পাচঁ মাস পার হয়ে গেলেও এখনো সড়কের বেশির ভাগ অংশের কোনো কাজই করেনি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান।

আর যে সব স্থানে কাজ করেছে ঐ অংশে শুধু ইট দিয়ে কার্পেটিং করে রাখায় বৃষ্টির পানি জমে তৈরি হয়েছে ছোট বড় অসংখ্যা খানাখন্দে ফলে প্রতিদিন যানবাহন খানাখন্দে পড়ে ঘটছে র্দূঘটনা।

সরজমিনে দেখা যায় পৌর শহরের প্রেসক্লাব মোড়, দেশওয়ালীপাড়া, এমকেসিএম মোড়, বুরুঙ্গা, চন্ডিগড় ইউনিয়নের মাকরাইল, চন্ডিগড় বাজার, একতা বাজার, সাতাশি, মধুয়াকোণায় সহ বিভিন্ন স্থানে যানবাহন তো দূরের কথা মানুষ হেটেই চলাচলের কোনো পথ পাচ্ছে না।

এই এলাকায় সড়কের বড় বড় খান্নাখন্দে প্রতিদিনই মাল ও যাত্রীবাহী যানবাহন আটকে পড়ে পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায় যান চলাচল। অনেক সময় যান বিকল হয়ে ঘন্টা পর ঘন্টা এমনি ৪/৫ দিন একই স্থানে যান পড়ে থাকতে দেখা গেচ্ছে। ফলে এই সড়ক দিয়ে যাতাযাতকারী যাত্রী, রোগী, শিক্ষার্থীসহ সকলেই জিম্মি হয়ে পড়েছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাছে।

এদিকে বিগত ঈদ ও পূজায় শহর থেকে সবার সঙ্গে উদযাপন করতে সাধারন মানুষ গ্রামে এসে পড়েছেন নানা রকম বিড়াম্বনায়। সড়কের বেহাল দশা ও বড় বড় খান্নাখন্দে মানুষের যাতায়াতে নেমে আসে সীমাহীন ভোগান্তিতে, মাত্র ২৪ কি.মি. এই সড়ক পাড়ি দিতেই ঘন্টার পর ঘন্টা পেড়িয়ে গেলেও নির্দিষ্ট গন্তব্যে দেখা পাচ্ছেনা যাত্রীরা। ফলে এক দিকে যেমন সড়কগুলোতে বাড়ছে যাত্রী চাপ, তেমনি অপরদিকে বাড়ছে যাত্রী ভোগান্তিও।

সাতাশি গ্রামের বাসিন্দা জলিল মিয়া ও সুবল দে বলেন আগে যাও সড়কটি দিয়ে চলাচল করা যাইতো এখন উন্নয়নের বলে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান সড়ক খোঁড়াখুঁড়ি করে আমাদের চলাচল বন্ধ করে দিচ্ছে। একবছর আগে একটু কাজ শুরু করছিলো আর এখনো শেষ দূরের কথা শুরুই করে নাই। মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ তিনি এই এলাকার মানুষের জন্য অনেক কিছুই করেছেন।

উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) কর্মকতা আব্দুল আলিম লিটন জানান ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের ধীরগতির কাজের কারণে এখনো সড়কের কাজটি শেষ হয়নি। আমরা তাদের উপর চাপ সৃষ্টি করেছি যাতে দ্রুত সময় মাঝে কাজটি শেষ করে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্য মানু মজুমদার এমপি বলে, দীর্ঘ দিন ধরে দুর্গাপুর-কলমাকান্দা এই দুই উপজেলা মানুষ এই সড়কটির জন্য কষ্ট করে আসছেন। সড়কটির কাজ অনেক আগেই শেষ হওয়ার কথা ছিলো কিন্তু ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানে গাফিলতির কারণে সড়কটি এখনো কাজ হয়নি। ইতি মধ্যে মন্ত্রী মহোদয়ের সাথে সড়কটির কাজের কথাও বলেছি। আর মানুষ যেনো এই সড়ক দিয়ে নির্বিঘ্নে চলাচল করতে পাড়ে তার জন্য আমি আমার ব্যক্তিগত অর্থে বালি ও পাথর দিয়ে সড়কটি সংস্কার করেছি।

সড়কটি দ্রুত সংস্কারে মাননীয় সড়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন দুর্গাপুর-কলমাকান্দাবাসী।

ভাল লাগলে শেয়ার করেন




© All rights reserved © 2017 jonopriya.com
Design & Developed BY jonopriya.com
error: Content is protected !!