রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০, ০৭:৫৩ অপরাহ্ন

করোনা জয় করলো গোপালগঞ্জের ১৮ পুলিশ সদস্য

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১২ মে, ২০২০
  • ৮০ বার পঠিত
করোনা জয় করলো গোপালগঞ্জের ১৮ পুলিশ সদস্য
করোনা জয় করলো গোপালগঞ্জের ১৮ পুলিশ সদস্য

করোনা জয় করলো গোপালগঞ্জের ১৮ পুলিশ সদস্য। স্বাস্থ্যবিধি আর পরামর্শ মেনে চললে করোনা জয় করা সম্ভব।

আর এ‌টি করে দে‌খিয়েছেন গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর থানার ১৮ পু‌লিশ সদস্য। এখন আবারও দেশ ও জনগনের সেবায় নিয়োজিত করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা।

তাই সকলকে স্বাস্থ্য‌বি‌ধি মনে ঘরে থাকার আহবান জা‌নিয়েছেন করোনা জয় করা এসব পু‌লিশ সদস্যরা।

জানাগেছে, সারা পৃ‌থি‌বীর মত অদৃশ্য শত্রু করোনা সাথে লড়ছে বাংলাদেশও। করোনার হাত থেকে সাধারন মানুষকে রক্ষা করতে প্র‌তি‌দিন আর প্র‌তি‌নিয়ত মাঠে ঘাটে ছুটে বে‌ড়িয়েছেন পু‌লিশ সদস্যরা।

কিন্তু সাধারন মানুষকে রক্ষা করতে গিয়ে ৯ এপ্রিল করোনার উপসর্গ নিয়ে মুকসুদপুর থানার পুলিশ সদস্য মহিউদ্দিন আহম্মেদ ছুটি নিয়ে মানিকগঞ্জের নিজ বাড়ি যান।

সেখানে গিয়ে করোনার টেষ্ট করলে তার করোনা ধরা পড়ে। এরপরই থানার ৭১ সদস্যসকে হোম কোয়ারেন্টাইনে নিয়ে করোনার পরী্ক্ষা করলে আরো ১৮ জন সদস্যের শরীরে করোনার অস্তিত্ব পাওয়া যায়।

আর এ খবরে পুলিশ সদস্যদের দু’চোখে নেমে আসে ঘোর অন্ধকার। স্ত্রী, সন্তান আর প‌রিবারের সদস্যদের চিন্তায় কাপালে ভাজ পড়ে তাদের। কিন্তু তারপরেও থেমে থাকে‌ননি এসব পু‌লিশ সদস্যরা।

জেলা পুলিশের বিশেষ তত্বাবধানে পুলিশ সুপার মুহাম্মদ সাইদুর রহমান খানের পক্ষ থেকে করোনা আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের খোঁজ খবর নেয়ার পাশাপাশি প্রত্যেককে গরম পানি পান করার জন্য কেটলী ও ফ্লাক্স দেবার পাশাপাশি প্রতিনিয়ত কমলা, লেবু, আপেল মাল্টাসহ পুস্টিকর খাবার দেয়া হয়।

দীর্ঘদিন ধরে হোম কোয়ারেন্টাইন, নিয়‌মিত ঔষধ সেবন অার চি‌কিৎসকদের পরামর্শ নিয়ে করোনাকে জয় করেন তারা। দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠেন তারা। এখন প‌রিবার ও কর্মস্থলে ফিরে দেশ ও জনগনকে সেবা দিতে অধির আগ্রহে রয়েছেন তারা।

নাম না প্রকাশ করার শর্তে করোনা জয় করা এসব পুলিশ সদস্যরা জানান, নমুনায় করোনা পজেটিভ আসায় পরিবার-পরিজনদের চিন্তায় ভেঙ্গে পড়েছিলাম। চিন্তায় ছিলাম আবার পরিবারের সদস্য ও কর্মস্থলে ফিরে যেতে পারব কিনা। কিন্তু পুলিশ সুপার স্যার চেষ্টায় আমরা দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠেছি। সর্বশেষ পরীক্ষায় আমাদের করোনা নেগেটিভ এসেছে। তারা সকলকে সরকারী স্বাস্থ্যবিধি ও হোম কোয়ারেন্টাইন মেনে চলার আহবান জানান।

সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (মুকসুদপুর ও কাশিয়ানী সার্কেল) অনোয়ার হোসেন ভূইয়া জানান, গত এপ্রিল মাসের ৯ তারিখে মুকসুদপুর থানার এক পুলিশ সদস্য করোনা আক্রান্ত হন। এরপর আরো ১৮ জনের শরীরের করোনার অস্থিত্ব পাওয়া যায়। পরে করোনা আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের তিনটি স্থানে রেখে সুপার মুহাম্মদ সাইদুর রহমান খানের তত্ত্বাবধানের চিকিসা করা হয়। তাদের মনোবল বাড়ানোর জন্য তিনি সব সময় তাদের খোঁজ খবর নিয়েছেন। সুস্থ হওয়া এসব পুলিশ সদস্যরা আবারো নতুন উদ্যেমে কর্মস্থলে যোগ দিতে পারেন বলে তিনি জানান।

গোপালগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা: নিয়াজ মোহাম্মদ জানান, গোপালগঞ্জে আক্রান্ত ১৯ জনের মধ্যে একজন মানিকগঞ্জে, ১৭ জন গোপালগঞ্জে ও আরো একজন ঢাকার পুলিশ হাসপাতালে চিকিতসা নেন। এর মধ্যে ১৮জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। বাকী ঢাকার পুলিশ হাসপাতালে চিকিতসা নেয়া অপর পুলিশ সদস্য দ্রুত সুস্থ হবার পথে। তিনি পুলিশ সদস্যদের মত সকলকে দৃঢ় মনোবল নিয়ে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার আহবান জানান।

গোপালগঞ্জের পুলিশ সুপার মুহাম্মদ সাইদুর রহমান খান বলেন, করোনা ভাইরাসের শুরু থেকে জনগনকে রক্ষা ও নিরাপত্তা রিশ্চিত করতে বহুমুথী সেবামুলক কায্যক্রম পরিচালনা করে বাংলাদেশ পুলিশ। জনগণকে রক্ষা করতে গিয়ে তারা করোনায় আক্রান্ত হন। এখন তারা সুস্থ। সকলকে সরকারী বিধি নিষেধ মানার পাশাপাশি পুলিশকে সহযোগীতা করার আহবান জানান তিনি।

শেয়য়ার করুন..

এ জাতীয় আরও সংবাদ

© All rights reserved © 2020 jonopriya.com
কারিগরি সহযোগিতায়-SHAHIN প্রয়োজনে:০১৭১৩৫৭৩৫০২ purbakantho
themesba-lates1749691102